কর্নাটকে হিজাব ইস্যুতে উত্তেজনা বাড়ছেই, অমিত সাহসী এক মুসলিম তরুণীর প্রতিবাদ

কর্নাটকে হিজাব ইস্যুতে উত্তেজনা বাড়ছেই, অমিত সাহসী এক মুসলিম তরুণীর প্রতিবাদ

বিশ্ব ডেস্ক
বিসিবিনিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম

ভারতের কর্নাটকে অমিত সাহস দেখালেন এক মুসলিম তরুণী। ওই রাজ্যে ক্ষমতাসীন বিজেপির বিপুলসংখ্যক সমর্থকের সামনে একাই জানিয়ে দিলেন তিনি মুসলিম। মাথা নত করার নয়!

‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগান দিয়ে যখন বিজিপি সমর্থকরা তাকে ঘিরে ধরে, তখন তিনি মোটেও কম্পিত হননি। বীরাঙ্গনার মতো হাত উঁচিয়ে স্লোগান দিয়েছেন- ‘আল্লাহু আকবর’।

মুহূর্তে ওই তরুণীর ছবি ও ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে গেছে।

কর্নাটকে হিজাব বনাম স্যাফ্রোন বা গেরুয়া স্কার্ফ নিয়ে উত্তেজনা তুঙ্গে। মুখোমুখি অবস্থান নিয়েছে মুসলিম ও বিজেপির সমর্থকরা। এক সপ্তাহের বেশি সংঘাতময় অবস্থার সৃষ্টি হলেও তা প্রশমনের কোনো উদ্যোগ দেখা যাচ্ছে না। উল্টো তা আরও শহরে ছড়িয়ে পড়েছে। মঙ্গলবার বিক্ষোভ হয়েছে শিবামোজ্ঞা শহরে।

এ খবর দিয়েছে অনলাইন এনডিটিভি।

তারা বলছে, মুখোমুখি অবস্থান নিয়ে উদুপি জেলার এমজিএম কলেজের গেটে দুটি গ্রুপ অবস্থান নিলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ডাকা হয়। এ উত্তেজনার একটি ভিডিও প্রকাশ করেছে এনডিটিভি, দূরদর্শন (ডিডি)। তাতে দেখা যায়- নিজে স্কুটি চালিয়ে কলেজে পৌঁছেন এক মুসলিম তরুণী। বোরকায় তার শরীর আচ্ছাদিত। তিনি কলেজের পার্কিংয়ে স্কুটি পার্ক করেন। শান্তভাবে তা থেকে নেমে আসেন। ওদিকে আগে থেকেই ওঁৎ পেতে ছিলেন বিজেপির সমর্থক ছাত্ররা। তারা ওই যুবতীকে দেখেই গেরুয়া পতাকা উড়াতে উড়াতে তার দিকে এগিয়ে যায় এবং স্লোগান দেয় ‘জয় শ্রীরাম’।

বিপুলসংখ্যক ছাত্রের এমন বিক্ষোভ দেখে বিন্দুমাত্র বিচলিত হননি ওই তরুণী শিক্ষার্থী। উল্টো তিনি তাদের সামনে দাঁড়িয়ে হাত উঁচু করে স্লোগান দেন- ‘আল্লাহু আকবর’। একবার দু’বার নয়। বেশ কয়েকবার এই স্লোগান দেন তিনি।

বিজেপিপন্থিরা তার আরো কাছে চলে আসে। তিনি স্বাভাবিক গতিতে সামনে এগিয়ে যান। কিছুটা দূরত্ব সৃষ্টি হয় বিজেপিপন্থিদের সঙ্গে। এ সময় ওই তরুণীর সাক্ষাতকার নিতে চেষ্টা করে মিডিয়া। সঙ্গে সঙ্গে আবার তাকে ঘিরে ধরে ওইসব ছাত্ররা। তারা গেরুয়া শাল উড়িয়ে, পতাকা দুলিয়ে নানা রকম স্লোগান দিতে থাকে।

এ পর্যায়ে দু’চারজন ব্যক্তিকে দেখা যায় ওই তরুণীকে উদ্ধার করছেন। তারপর তিনি চলে যান ক্লাসরুমের দিকে।

এমন ঘটনায় সেখানে উত্তেজনা তুঙ্গে। হিজাব পরা ও স্যাফ্রোন বা গেরুয়া শাল পরা বিক্ষোভকারীদের মধ্যে উত্তেজনার পর হরিহরা এবং দাভেঙ্গেরে শহরে সমাবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। সেখানে বিক্ষোভের সময় একপক্ষ অন্যপক্ষের বিরুদ্ধে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। তাদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ কাঁদানে গ্যাস এবং লাঠিচার্জ করে।

এসব ঘটনা থেকে সাম্প্রদায়িক পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়ার মতো অবস্থায় পৌঁছালেও কর্নাটকে ক্ষমতাসীন বিজেপি সরকার এখনও নীরব। তারা অপেক্ষা করছে কর্নাটক হাইকোর্টের একটি সিদ্ধান্তের জন্য। কলেজে হিজাব পরা নিয়ে বিধিনিষেধ সম্পর্কে সিদ্ধান্ত চেয়ে উদুপির একটি সরকারি কলেজের পাঁচ যুবতী আদালতে পিটিশন করেছে। সেই পিটিশনের জবাবে আদালত কি বলে সেদিকে তাকিয়ে আছে সরকার।

পিটিশনের জবাবে কোনো সিদ্ধান্ত মঙ্গলবার ঘোষণা করেনি আদালত। তবে আদালত থেকে বলা হয়েছে, এই পিটিশনের আরও শুনানি হবে। এ সময়ে ছাত্র সমাজ ও জনগণকে শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখার জন্য অনুরোধ করেছে আদালত। জনগণের প্রজ্ঞা ও গুণাবলীর ওপর আদালতের পূর্ণ আস্থা রয়েছে। আদালত আশা করে- জনগণ সেই চর্চা করবে।

প্রথমে উদুপির একটি কলেজে হিজাব ইস্যুতে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। নিষেধাজ্ঞার প্রতিবাদে হিজাব পরার দাবিতে বিক্ষোভ করতে থাকেন মুসলিম ছাত্রীরা। পরে তা কর্নাটকের অনেক কলেজে ছড়িয়ে পড়ে। পাল্টা বিক্ষোভ করে বিজেপিপন্থি শিক্ষার্থীরা। তারা বিজেপির গেরুয়া শাল গলায় ঝুলিয়ে, পতাকা উড়িয়ে বিক্ষোভ করতে থাকেন। এতে মুখোমুখি অবস্থানে চলে আসে উভয়পক্ষ। মঙ্গলবার তাতে সাম্প্রদায়িকতার রঙ লাগে। একপক্ষ অন্যপক্ষের বিরুদ্ধে অধিক আগ্রাসীভাবে সংঘাতে লিপ্ত হয়।

এদিন উদুপিতে একটি কলেজে বিপুলসংখ্যক শিক্ষার্থী বিক্ষোভ করেন। এর একপক্ষ হিজাবের সমর্থক। অন্যপক্ষ গেরুয়া স্কার্ফ পরার পক্ষে। এখান থেকেই এদিন উত্তেজনার শুরু।

এনডিটিভি বলছে, উদুপির গভর্নমেন্ট গার্লস পিইউ কলেজে গত মাসে শুরু হয় হিজাব বিষয়ক প্রতিবাদ বিক্ষোভ। ওই সময় ৬ জন ছাত্রী অভিযোগ করেন, মাথায় স্কার্ফ পরে ক্লাস করায় তাদের বাধা দেয়া হয়েছে। ক্লাসরুমে মুসলিম বালিকাদের হিজাব পরার বিরোধিতা করে উদুপি এবং চিক্কামাগালুরুর উগ্র ডানপন্থিরা।

শুরুটা এখন থেকে হলেও বিক্ষোভ আস্তে আস্তে ছড়িয়ে পড়ে উদুপি এবং অন্য স্থানে। এ অবস্থায় রাজ্য সরকার শনিবার এমন পোশাক নিষিদ্ধ করে, যা সমতার ক্ষেত্রে, সম্মানের ক্ষেত্রে এবং জনশৃংখলার ক্ষেত্রে বিঘ্ন সৃষ্টি করে। তবে প্রশসনিক কমিটি ওই কলেজের জন্য কোনো নির্দিষ্ট পোশাক কোড নির্বাচন করেনি।

অমিত সাহসী সেই মুসলিম তরুণীর প্রতিবাদের ভিডিও

এই পোর্টালে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




এই পাতার আরও সংবাদ