নেদারল্যান্ডসে ইসলামের আলো ছড়াচ্ছেন তুর্কি ইমাম, কী তার রহস্য?

Turki Imam Edliz

জীবন ডেস্ক
বিসিবিনিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম

ইউরোপের দেশ নেদারল্যান্ডস। মাত্র পৌনে দুই কোটি জনসংখ্যার দেশটির অর্ধেকের বেশি মানুষ কোনো ধর্মেই বিশ্বাস করেন না। বলাবাহুল্য, বাকিদের মধ্যে বেশিরভাগই খ্রিস্টান ধর্মে বিশ্বাসী। নেদারল্যান্ডস এর শতকরা মাত্র পাঁচ ভাগ মানুষ মুসলমান।

এমন এক দেশে ১৫০ জন মানুষকে ইসলাম ধর্মে ধর্মান্তরিত হতে সাহায্য করেছেন একজন মাত্র ব্যক্তি!

হ্যা, ঘটনা সত্য। ওই ব্যক্তির নাম বুনিয়ামিন ইলদিজ।
জন্ম নেদারল্যান্ডসে হলেও ইলদিজ মূলত তুর্কি বংশোদ্ভূত। পেশায় ইমাম ইলদিজ তুরস্কের প্রেসিডেন্সি অফ রিলিজিয়াস অ্যাফেয়ার্স (ডিআইবি) এর সাথে যুক্ত নেদারল্যান্ডস দিয়ানেট ফাউন্ডেশন দ্বারা পরিচালিত মসজিদগুলোতে কাজ করেন।

আর নিজ দায়িত্ব পালন করতে গিয়েই দেড়শো মানুষকে ইসলাম ধর্মে ধর্মান্তরিত করতে সাহায্য করেছেন তিনি।

ইউরোপীয় দেশটির দুটি মসজিদে নয় বছর ধরে কাজ করছেন ইলদিজ। এ সময়কালে তার প্রচেষ্টায় নেদারল্যান্ডস এর পাশাপাশি পোল্যান্ড, রাশিয়া এবং চীনের মানুষও ইসলামে ধর্মান্তরিত হয়েছেন।

ইলদিজের বয়স এখন ৩৪ বছর। তিনি এখন দক্ষিণ নেদারল্যান্ডসের শহর বার্গেন অপ জুমের উলু মসজিদে ইমাম হিসেবে নিয়োগপ্রাপ্ত। এটাই ইমাম হিসেবে তার শেষ পদায়ন। ইমাম হিসেবে সর্বশেষ এই দায়িত্ব পালনকালে তিনি আরও বেশি সংখ্যক মানুষকে ধর্মান্তরিত করার আশা করছেন।

কিন্তু ইলদিজের রহস্যটা কী? নেদারল্যান্ডস এর মতো দেশে কিভাবে তিনি ইসলাম ছড়িয়ে দিচ্ছেন?

উত্তরটাও বাতলে দিয়েছেন ইলদিজ। আনাদুলু এজেন্সিকে তিনি বলেছেন, মহানবীর (সা.) বাণী তাকে আরও বেশি সংখ্যক মানুষকে ইসলামের পথে নিয়ে যেতে দিক-নির্দেশনা প্রদান করে।

ইলদিজ জানান, তার অনুপ্রেরণা ছিল “সাহাবীরা” (নবীর সাথীরা, যারা বিভিন্ন দেশে ইসলাম প্রচার করেছেন)।

তিনি বলেন, ‘আমিও নিজের মধ্যে তাদের মতো ইচ্ছা ধারণ করি এবং তার ফলও পাই। আমি অন্যদের সাহায্য করার জন্য নিজেকে ধন্য মনে করি।’

তবে, অন্য ধর্মের মানুষের ইসলামে ধর্মান্তরিত হওয়ার পেছনে মুসলমানদের আচরণের ভূমিকা রয়েছে বলেও মনে করেন ইলদিজ, ‘আমার পথপ্রদর্শক হল নবীজীর হাদিস যা বিশ্বাসীদের ‘মানুষের জন্য সবকিছু সহজ করে দিতে, তাদের সুসংবাদ দিয়ে শান্ত করতে এবং তাদের বিতাড়িতে না করতে’ আহবান জানায়।’

ইলদিজ যাদের ইসলাম ধর্মে ধর্মান্তরিত হতে সাহায্য করেছেন তাদের মধ্যে সিডনি জান্ডউইজকেন একজন। ইলদিজের সাথে তার দেখা হয়েছিল মেভলানা মসজিদে। ইলদিজ আগে বন্দর নগরী রটারডামের ওই মসজিদে কাজ করতেন।

২১ বছর বয়সী সিডনি জানান, তিনি তার মুসলিম বন্ধুদের দ্বারা প্রভাবিত হয়েছিলেন এবং ইলদিজ তাকে ধর্মান্তরিত হতে সাহায্য করেন।

তিনি বলেন, ‘আমি শান্তি খুঁজছিলাম। ইসলাম আমাকে শান্তি দিয়েছে।’

এই পোর্টালে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




এই পাতার আরও সংবাদ