সেপটিক ট্যাংকে নেমে একে একে তিনজনের মৃত্যু

প্রেম করে বিয়ের ৭ দিন পরই শ্বশুরবাড়িতে মিলল লাশ

সারাদেশ ডেস্ক
বিসিবিনিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম

নরসিংদীর মাধবদীতে সেপটিক ট্যাংকের ভেতরে নেমে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। মৃতরা হলেন আনিছ (১৬), বায়েজিদ আহমেদ (২২) ও জাহিদ (৩২)।

সোমবার দুপুরে সদর উপজেলার মাধবদীস্থ নূরালাপুর ইউনিয়নের গদাইরচর আছিয়া ইসলামিয়া সিনিয়র মাদ্রাসায় এই ঘটনা ঘটে।

নিহত স্যানিটারি মিস্ত্রি জাহিদ নরসিংদী শহরের বাসাইল এলাকার এরশাদ মিয়ার ছেলে, রংমিস্ত্রী বায়েজিদ শহরের সাটিরপাড়া এলাকার নজরুল ইসলামের ছেলে এবং আনিছ মাধবদীর গদাইচর এলাকার কাউছার মিয়ার ছেলে।

স্যানিটারি কন্ট্রাক্টর ও প্রত্যক্ষদর্শী রণি হাসান জানান, শ্রমিকরা মাদ্রাসার দেয়ালে রং করার সময় তাদের কাজ করার একটি যন্ত্র মাদ্রাসার পরিত্যক্ত ট্যাংকে পড়ে যায়। পরে স্যানিটারি মিস্ত্রি জাহিদ তা তুলতে বাঁশ দিয়ে ট্যাংকের ভেতরে নামেন। তিনি সেখানে নেমে ‘বাঁচাও বাঁচাও’ বলে চিৎকার শুরু করলে তাকে উদ্ধার করতে অপর শ্রমিক বায়েজিদ সেপটিক ট্যাংকে নেমে পড়েন।

এরপর তাকে উদ্ধার করতে প্রত্যক্ষদর্শী আনিছ ভেতরে নামলেও তিনিও ফিরে আসেননি।

খবর পেয়ে মাধবদী ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা বিকেল ৪টায় তিনজনকে উদ্ধার করে নরসিংদী সদর হাসপাতালে পাঠায়।

মাধবদী ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার মাজহারুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের উদ্ধার করি। এদের মধ্যে ২ জনকে মৃত উদ্ধার করা হয়। আনিছ নামে অপরজনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় নরসিংদী সদর হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যান।

তিনি ধারণা করছেন, অক্সিজেন স্বল্পতার কারণে বিষাক্ত গ্যাসের সৃষ্টি হয়, আর এ কারণেই তাদের মৃত্যু হয়েছে।

মাধবদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রকিবুজ্জামান জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। তবে পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এই পোর্টালে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




এই পাতার আরও সংবাদ