সৌদি প্রবাসে নির্যাতিত তরুণী, দেশে ফেরার আকুতি

সৌদি প্রবাসে নির্যাতিত তরুণী, দেশে ফেরার আকুতি

সারাদেশ ডেস্ক
বিসিবিনিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম

সৌদি আরবে মালিক ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের নির্যাতনের শিকার হবিগঞ্জের এক তরুণী দেশে ফেরার আকুতি জানিয়েছেন।

সম্প্রতি ভিডিও কলের মাধ্যমে পরিবারের কাছে তাঁর এই আকুতি জানানোর ক্লিপ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে তা ব্যাপক সাড়া ফেলে।

নির্যাতনের শিকার তরুণী শিল্পী আক্তার হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘাট উপজেলার আহম্মদাবাদ ইউনিয়নের তৈইগাঁওয়ের আব্দুল মজিদের মেয়ে।

ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা যায়, ওই তরুণী কান্নাজড়িত কণ্ঠে তাঁর মায়ের কাছে বলছেন, ‘তুমরার কাছে আমি ভিক্ষা চাই। আমারে দেশ ফিরাইয়া নেও। তিন বছর ধইরা আমারে আটকাইয়া রাখছে। আমারে ধরে-মারে। মালিকে মারে, মালিকের পুলা-পুইরে মারে। দেশে ফিরাইয়া না নিলে আমারে মাইরালাইব, লাশ কইরা বাংলাদেশে পাঠাইব।’

শিল্পীর মা নুরচান বিবি জানান, ২০১৯ সালের এপ্রিলে সৌদি আরব যান তাঁর মেয়ে। সেখানে একটি বাসায় গৃহকর্মীর চাকরি নেন তিনি। তবে বাসাটি সৌদি আরবের কোন এলাকায় তা তাঁদের সঠিকভাবে জানা নেই।

শিল্পীর বাবা আব্দুল মজিদ বলেন, ‘সংসারে অভাবের কারণে মেয়েকে সৌদি আরব পাঠিয়েছিলাম। ঢাকার পুরানা পল্টনের ৪ সাইট ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেডের মাধ্যমে সেখানে গিয়েছিল শিল্পী। এখন আমার মেয়ে খুব কষ্টে আছে। আমি আমার মেয়েকে ফিরে চাই।’

এ ব্যাপারে প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক খালেদ হোসাইন বলেন, ‘আমরা মেয়েটিকে দেশে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করছি। এ ব্যাপারে মন্ত্রণালয়ে এক মাস আগে অভিযোগ দিয়েছি। আশা করি দ্রুত তাঁকে দেশে ফিরিয়ে আনতে পারব।’

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সিদ্ধার্থ ভৌমিক জানান, এ ব্যাপারে শিল্পীর পরিবারের পক্ষ থেকে এখনও কোনো অভিযোগ করা হয়নি। তারা লিখিত অভিযোগ দিলে দূতাবাসের মাধ্যমে তাঁকে দেশে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করা হবে।

এই পোর্টালে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।