সেই হাতি ‍দুটোকে এখনও বনে ফেরানো যায়নি

সেই হাতি ‍দুটোকে এখনও বনে ফেরানো যায়নি

নিজস্ব প্রতিবেদক, টেকনাফ (কক্সবাজার)
বিসিবিনিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম

মিয়ানমারের সীমান্ত পেরিয়ে নাফ নদ সাঁতরে টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপে চলে আসা দুই বুনো হাতিকে এখনও বনে ফেরাতে পারেনি বন বিভাগের এলিফ্যান্ট রেসপন্স টিমের সদস্যরা।

হাতি দুটি বনাঞ্চলে ফেরত পাঠানোর চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে উল্লেখ করে টেকনাফ থানায় জিডি করেছেন দক্ষিণ বন বিভাগ টেকনাফের রেঞ্জ কর্মকর্তা সৈয়দ আশিক আহমেদ।

তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, ‘উৎসুক মানুষের ভিড়ে হাতি দুটি ছুটে বেড়াচ্ছে দ্বীপের নানা প্রান্তে। খাবারের অভাবে হাতি দুটি দুর্বল হয়ে পড়েছে। সোমবার বিকেল পর্যন্ত হাতি দুটি টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপের ঘোলারচরে অবস্থান করছিল।’

টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান জানান, হাতি দুটিকে বনাঞ্চলে ঢুকিয়ে দিতে সহায়তা করছে পুলিশ।

সেই হাতি ‍দুটোকে এখনও বনে ফেরানো যায়নি

কক্সবাজারের পরিবেশ বিষয়ক সংস্থা ইয়ুথ এনভায়রনমেন্ট সোসাইটির (ইয়েস) প্রধান নির্বাহী এম ইব্রাহিম খলিল মামুন বলেন, ‘অতি দ্রুত হাতি দুটির নিরাপদ আশ্রয় ও খাবারের ব্যবস্থা না করলে মৃত্যু ঝুঁকি রয়েছে। শুরু থেকে বন বিভাগ হাতি দুটি বনাঞ্চলে পাঠানোর ব্যবস্থা নিতো তাহলে আজ এ সমস্যা সৃষ্টি হতো না।’

সাবরাং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল হোসাইন বলেন, ‘তিনদিনে হাতি দুটিকে দৌঁড়ের ওপর রাখা হয়েছে। এতে চলতে চলতে ক্লান্ত হয়ে চরে পড়ে আছে হাতিগুলো। এমনিতে রোহিঙ্গাদের কারণে দেশের বুনো হাতি বিপন্নের পথে। এই হাতি দুটি দ্রুত বনাঞ্চলে ফেরত পাঠানোর পদক্ষেপ গ্রহণ করা না গেলে মারা যাবার আশংকাও রয়েছে।’

গত শনিবার দুপুরে মিয়ানমারের সীমান্ত পেরিয়ে নাফ নদী সাঁতরে বাংলাদেশের সীমানায় ঢুকে পড়েছে দুটি মা হাতি। সেদিন সন্ধ্যায় পাঁচ ঘণ্টা চেষ্টার পর টেকনাফ জালিয়াপাড়া প্যারাবন থেকে হাতি দুটিকে বনাঞ্চলে ঢুকিয়ে দেয় দক্ষিণ বন বিভাগ টেকনাফ ও এলিফ্যান্ট রেসপন্স টিমের সদস্যরা। তবে রোববার সকালে আবার নাফ নদীতে নেমে আসে হাতি দুটি।

এই পোর্টালে প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




এই পাতার আরও সংবাদ